‘আমার দোষ আমি হাতাকাটা ব্লাউজ পরে বইমেলায় গিয়েছি’

শেয়ার সোশ্যাল মিডিয়া

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: চল’তি বছর বই’মেলায় অ’ভিনেত্রী আশনা’ হাবিব ভাবনার’ ‘গোলাপি জমিন’ না’মের একটি উপন্যাস ‘ও ‘রাস্তার ধারের গাছটি’র কোনো ধর্ম’ ছিলো না’ শিরো’নামের একটি কবিতার ‘বই’ প্রকাশ হয়েছে। এই ‘দুই বইয়ের জন্যই’ মেলায় গিয়েছিলে’ন তিনি। সেখানে পাঠক’ ও ভক্তদের ‘অটোগ্রাফ দিয়েছে’ন এই অভিনেত্রী। সে’ই মুহূর্তগুলো ক্যামেরাব’ন্দী করে সোশ্যাল ‘মিডিয়ায় পোস্ট ক’রেন একজন ‘নেটাগরিক। ছবি’গুলো মুহূ’র্তেই ভাইরা’ল হয়ে যায়। ‘সেই পোস্টটি ‘নজর এড়ায়নি ‘ভাবনার।

বইমেলা’য় তোলা ভা’বনার ছবি দুটি ‘পোস্ট করে পূ’র্ব মিজান না’মে একটি আই’ডি থেকে লিখেছে’ন, ‘বর্তমানে ফেসবুকে’র বদৌলতে এ’ রকম আই’টেম লেডিস, ‘স্লিভলেস পরা ম’হিলা কবি দেখতে পাবে’ন। আসল কথা হ’চ্ছে নিজের ইজ্জ’তকে, নিজের সম্মা’নকে প্রথমে সম্মান’ করার দায়িত্ব’ নিজেরই। অ’ন্য কেউ যখন বলবে মে’য়েরা মায়ের জাত, মে’নে নিলাম মেয়েরা মা’য়ের জাত কিন্তু এইসব’ নির্লজ্জ, অজা’ত কুজাত ‘কখনো মায়ের ‘জাত হতে পারে না’। আর যারা এদের ‘পক্ষ নিয়ে এসব আইটেম’ লেডিস কবিদের সাপোর্ট করে’, আমি মনে ক’রি ওরাও জন্মগত’ সমস্যা’য় ভুগ’ছে। ওরা হচ্ছে’ বডি আর চেহা’রা দেখানো কবি। বাংলা’ সাহিত্যটাকে একদম ‘শেষ করে দিচ্ছে ওরা ‘আর ওদের পক্ষ ‘নিয়ে যারা কথা’ বলে তারা’।’

এমন পোস্টে’র প্রতিবাদ জা’নিয়ে ভাবনা এক ফেস’বুক পো’স্টে জানান, ‘’আমার দোষ আমি ‘হাতাকাটা ব্লাউজ প’রে বইমেলা’য় গিয়ে’ছি? সত্যি! আমাদের নানি-দাদিরা এ’খনো হাতাকাটা ব্লা’উজ পরে থা’কেন। এই ছবিটি’ সবাই পোস্ট কর’ছে, আমাকে নিয়ে’ বাজে কথা লি’খছে। অশ্লীল ‘বলছে! যা’রা পো’স্ট করে বাজে ‘লিখছে তারা বেশিরভা’গ পুরুষ। সব পুরুষ’কে খারাপ বলব কী করে’, আমার বাবা তো ‘আমাকে কখনো’ বলে দেয়নি ‘কী পোশাক পরা উচিত? ‘আমি কী পরব? আ’মরা নারীরা কি ‘পরব তা ঠিক করবে’ন আপনি? আমার স’ত্যি কিছু বলার ‘নেই।’

সবশে’ষে তিনি লিখেছেন’, ‘গত তিন-চার দি’ন ধরে আমি খুবই ‘বিরক্ত এবং হতাশ। আম’রা আসলেই ‘কি নারীর সম্মান ক’খনই দিতে পা’রব না?’

ভাবনা’ বলেন, ‘একটি শ্রে’ণি সারাদিন ফেসবু’কে পড়ে থাকে’ শুধু মেয়েদের ‘ছবির নিচে বাজে ‘মন্তব্য করার ‘জন্য। এদের কাজ নে’ই। সা’রা দিন ‘এরা ওঁৎ পেতে থাকে ক’খন মেয়েরা ছবি পোস্ট’ করবে আর সেখানে’ তারা বাজে মন্তব্য ক’রবে। এরা নিম্ন মানসিকতা’র। এদের মন্তব্য আ’মি দেখি না। কি’ন্তু দিন’শেষে ‘আমিও তো মানু’ষ, আমারও তো পরিবা’র আছে, কত স’হ্য করা যায় এসব। এসব নিম্ন মা’নসিকতার’ মানুষদের ‘চিকিৎসা করা উচিত।’ এদের চিকিৎ’সা হলো শা’স্তি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *