ইত্যাদির প্রতি তার বিশেষ দুর্বলতা ছিল: হানিফ সংকেত

শেয়ার সোশ্যাল মিডিয়া

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: বাংলা চলচ্চিত্রের বরেণ্য অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের মৃত্যুতে শোকাচ্ছন্ন পুরো শোবিজ দুনিয়া। নেট দুনিয়াতেও তাকে স্মরণ করেছেন অনেকে। ছবি এবং স্ট্যাটাস শেয়ারের মাধ্যমে গুণী এ অভিনেতার আত্মার শান্তি কামনা করেছেন অনেকে।

এটিএম শামসুজ্জামানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন দেশের বিনোদন অঙ্গনের অন্যতম জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেত। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) নিজের ফেসবুকে লম্বা স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। লিখেছেন এটিএম শামসুজ্জামানকে নিয়ে বিভিন্ন তথ্য।

শুরুতেই হানিফ সংকেত লিখেন, ‘বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন থেকে ঝরে গেল আরো একটি নক্ষত্র। সকলের প্রিয় অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান। আমাদের এটিএম ভাই। বর্ণাঢ্য যার অভিনয় জীবন। বিভিন্ন শারীরিক জটিলতা নিয়ে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন।’

যোগ করে তিনি আরও লিখেন, ‘অত্যন্ত মেধাবী, প্রাণবন্ত, বিনয়ী, সহজ-সরল, সাদামাটা মানুষ ছিলেন এটিএম ভাই। ছিলেন একজন আদর্শ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব। অসুস্থতার সময় নিয়মিত তার খোঁজ-খবর রাখতে চেষ্টা করতাম। হাসপাতালেও গিয়েছি। রুনী ভাবীর সঙ্গে নিয়মিত কথা হতো। এটিএম ভাই ছিলেন ইত্যাদির বিশেষ অনুষ্ঠানগুলোর প্রায় নিয়মিত শিল্পী। এছাড়াও আমার অন্যান্য অনুষ্ঠান ও অনেকগুলো নাটকে তাকে নেওয়ার সুযোগ হয়েছিল।’

এটিএম শামসুজ্জামানকে কাছ থেকে দেখেছি, গভীরভাবে মেশার সুযোগ পেয়েছি উল্লেখ করে হানিফ সংকেত আরও লিখেন, ‘ইত্যাদির প্রতি তার একটা বিশেষ দুর্বলতাও ছিল। আর সেজন্যই চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায়ও তিনি বার বার ইত্যাদির কথা স্মরণ করেছেন। হাসপাতালে দেখতে গেলে সুস্থ হয়ে আবারও ইত্যাদির ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন। আর তাই প্রথম যখন কিছুটা সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন তখনই ভাবী আমাকে জানিয়েছিলেন এটিএম ভাই ইত্যাদিতে অভিনয় করতে চান।’

জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’ থেকেই দ্বিতীয় যাত্রা শুরু করতে চেয়েছিলেন এটিএম শামসুজ্জামান। বর্ষীয়ান অভিনেতা মাসুদ আলী খানের সঙ্গে একটি নাট্যাংশে অভিনয় করেছিলেন তিনি। যা প্রচার হয়েছিল ইত্যাদিতে। সেটিই ছিল এটিএম শামসুজ্জামানের জীবনের শেষ অভিনয়। নিজের স্ট্যাটাসে এমনটাও উল্লেখ করেছেন এটিএম শামসুজ্জামান।

স্ট্যাটাসের শেষে জনপ্রিয় এ উপস্থাপক লিখেন, ‘অনেক শিল্পীরই বিকল্প তৈরি হয় কিংবা করা যায় কিন্তু এটিএম শামসুজ্জামানের কখনোই কোন বিকল্প ছিলো না, আর তৈরি হবে কিনা জানি না। তার প্রতিটি চরিত্রই ছিলো তার অভিনয় নৈপুণ্যে আলাদা বৈশিষ্ট্যের। এই মহান শিল্পীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আমরা তার মাগফিরাত কামনা করছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *