গণপরিবহন চালু নিয়ে পরিবহন শ্রমিকরা যা বললেন…

শেয়ার সোশ্যাল মিডিয়া

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: করোনা’ভাইরাস সংক্রমণ রোধে’ সরকারের ঘোষিত লক’ডাউনে গণপরিবহন দীর্ঘদিন বন্ধ’ থাকার পর মঙ্গল’বার খুলে দেয়ার ঘোষণা আসা’য় স্বস্তি ফিরেছে শ্রমি’কদের মাঝে।’

শিকড় পরিবহ’নের বাস চালক নিজামুদ্দিন বলে’ন, যখন গাড়ি চালাই ত’খনই আমরা খেতে পারি’। আমরা কারো কাছ থেকে ‘কোনো প্রকার’ সাহায্য সহযো’গিতাও পাইনি। কোম্পানিও কোনো ধরনে’র সা’হায্য সহযো’গিতা করেনি। ধার-দেনা ক’রে লকডাউনে ‘চলেছি।

কোম্পা’নির বাস চালক মো.’ সবুজ বলেন, গণপরিবহন বন্ধ থাকায় সং’সার চালানো কষ্ট কর হয়ে ‘পড়েছে। বাকি কয়দি’ন বসে থাকতে হবে’। যদি সরকা’র আবার গণপরিব’হন বন্ধের ঘোষণা দেয়’ তখন চুরি-ছিনতাই ক’রা ছাড়া আর কোনো’ পথ থা’কবে না।

টেম্পু চালক’ নূর ইসলাম বলেন, ফের গণপ’রিবহন চলাচল বন্ধের নির্দেশনা এলে ‘আত্মহত্যা করা বা চুরি করা’ ছাড়া আমার আর ‘কোনো উপায় ‘থাকবে’ না।

পরিস্থা’ন পরিবহনের বাস ‘চালক সিরাজ মোল্লা বলেন, রাস্তায় গাড়ি’ চললে পুলিশকে চাঁ’দা দিতে হয়। কিন্তু লক’ডাউনে গাড়ি বন্ধ থা’কায় কোনো পুলিশ স’দস্য এই পরিবহন’ শ্রমিকদের পাশে দাঁ’ড়ায়নি’। আর কয়েকটা দি’ন পরেই ঈদ। বউ বা’চ্চাকে কি কি’নে দিবো। মা-বাবাকে’ও কি ‘বা দিবো। নিজে’র কথা না হয় বাদই দিলাম। সবা’ই ঈদ করতে পারবে ‘কিন্তু পরিবহন শ্রমি’করা ঈদ কর’তে পার’বেনা।

স্বাস্থ্যবি’ধি মেনে শর্তসা’পেক্ষে আগামী ৬ মে থে’কে জেলার ভেতরে গণপ’রিবহন চলাচল করতে’ পারবে। যেমন- ঢাকা’ জেলার মধ্যে’ থাক’তে হবে। লঞ্চ এবং ‘ট্রেন বন্ধ থাকবে। যেহে’তু ওগুলো এক জেলা থে’কে আরেক জে’লায় যায়। সুতরাং’ বন্ধ থাক’বে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *