দু’য়ের ঘরের নামতা বলতে না পারায় বিয়ে ভাঙলেন কনে

শেয়ার সোশ্যাল মিডিয়া

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: দু’য়ের ঘরের ‘নামতা বলতে না’ পারায় বিয়ে ভেঙে দিলে’ন কনে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের ‘উত্তরপ্রদেশের মাহোবা’ এলাকায়। খবর’ আনন্দবা’জার পত্রি’কার।

শনি’বার (১ মে) বরযাত্রী সঙ্গে নিয়ে রা’জকীয় বেশে বিয়ে করতে এসেছি’লেন পাত্র। সবই ঠিক’ চলছিল, কিন্তু মালাবদলের আগে হঠা’ৎ দু’য়ের’ ঘরের নামতা জি’জ্ঞাসা করে বসেন ‘পাত্রী। তাতে’ই ঘটলো যত বিপ’ত্তি।

খবরে বলা’ হয়, বিয়ের সমস্ত আয়োজনই জ’মজমাট। আনুষ্ঠানিকতা’ প্রায় শেষের দিকে। মা’লাবদলের ঠিক আগ মুহূর্তে’ পাত্র অঙ্ক ‘জানেন কি না’, যাচাই করে ‘নিতে চেয়েছিলেন কনে। তাই’ গলায় মালা পরানোর ‘আগে পাত্রকে বলে’ছিলেন দু’য়ের ঘরের ‘নামতা বলতে। কিন্তু সে’খানেই আটকে গে’লেন পাত্র। পারলেন না না’মতা বলতে। আর তাতেই’ ক্ষেপে গিয়ে বিয়ের আ’সর ছেড়ে চলে গেলেন পাত্রী। ‘বললেন, ‘অঙ্কের প্রাথ’মিক জ্ঞান নেই-এমন’ ছেলের সঙ্গে ঘ’র করতে পা’রবেন’ না তিনি।

স্থানীয় প্র’শাসনের পক্ষ থেকে ব’লা হয়েছে, দুই বাড়ির ‘অভিভাবকরা দেখাশো’না করে বিয়ে ঠিক করেছিলে’ন। কিন্তু পাত্রীর বাড়ি’র লোকে’র অভিযোগ আ’গাগোড়াই পাত্রের শিক্ষাগত যোগ্যতা নি’য়ে তাদের অন্ধকারে রাখা হয়ে’ছিলো। ফলে স্বাভাবি’কভাবে জালিয়াতির’ অভিযোগ’ তুলেছেন তারা। পাত্রী’র বোন বলেন, আমার দিদি যথেষ্ট সাহসী’, তাই বিয়ের মণ্ডপ থে’কেই জানিয়ে দিতে ‘পেরেছে, ও বিয়ে করবে’ না।

স্থানীয় প্রশাস’নের হস্তক্ষেপে ঘটনা’ বেশি দূর গড়ায়নি। গ্রামের কর্তাব্যক্তিদের ম’ধ্যস্থতায় ঠিক হয়েছে, বিয়ে হবে না’। দুইপক্ষই একে ও’পরকে সমস্ত উপহার, ‘যৌতুক, গয়নাগাটি ফের’ত দিয়ে দিয়ে’ছেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *