আনন্দআমার কথাআমার দেশআরও কিছুকবিগল্পকারছবি আঁকিদলদলপ্রযুক্তি দুনিয়াবিদেশব্যবসাশিক্ষাশীর্ষসাম্প্রতিকসারাদেশ

শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার বিভীষিকাময় দিন আজ

আজ রক্তাক্ত ২১ আগস্ট। ১৯ বছর আগে ২০০৪ সালের এই দিনে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ কেঁপে উঠেছিল মুহুর্মুহু গ্রেনেড বিস্ফোরণে। মানুষের আর্তনাদ আর ছোটাছুটিতে সেখানে তৈরি হয় এক বিভীষিকাময় পরিস্থিতি। আওয়ামী লীগের সমাবেশে নারকীয় গ্রেনেড হামলায় ঝরে যায় ২৪টি প্রাণ। আহত হন দলীয় ৫ শতাধিক নেতাকর্মী। অল্পের জন্য রক্ষা পান দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় চালানো হয় নারকীয় এ হত্যাযজ্ঞ। নৃশংস গ্রেনেড হামলায় আহতদের অনেকে এখনো শরীরে গ্রেনেডের স্প্লিন্টার নিয়ে দুঃসহ জীবন কাটাচ্ছেন। অসহ্য যন্ত্রণা বয়ে বেড়াচ্ছেন অনেকে। গ্রেনেডের স্প্লিন্টারের আঘাতে কেউ হারিয়েছেন চোখ, কারো গেছে চলার সক্ষমতা, কেউ হারিয়েছেন শ্রবণশক্তি। অনেকে প্যারালাইজড হয়ে হুইল চেয়ারে চলাফেরা করছেন, অনেকের জীবনে এখন ক্র্যাচই নিত্যসঙ্গী। আবার কারও সারা জীবনের সঙ্গী হয়েছে অসহ্য যন্ত্রণা। এত বছর পরও স্প্লিন্টারের যন্ত্রণায় রাতে ঠিকমতো ঘুমাতে পারেন না তারা।

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আয়োজিত সেই সমাবেশ বিকেল ৪টা থেকে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী এবং সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণে কানায় কানায় ভরে ওঠে। স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউসহ আশপাশের এলাকা।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *