হাটহাজারীর ঘটনায় প্রথমবার দুঃখ প্রকাশ করলেন বাবুনগরী

শেয়ার সোশ্যাল মিডিয়া

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: ভারতে’র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মো’দির বাংলাদেশ সফরের ‘দিন চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ‘সংঘাতের জন্য প্রথমবার দুঃখ ‘প্রকাশ করেছেন হেফাজ’তে ই’সলামের আমীর জুনায়েদ বাবুনগ’রী। তিনি বলেছেন, ‘কোনো দলের এজে’ন্ডা বাস্তবায়ন করা হেফাজ’তে ইসলামের উদ্দেশ্য ন’য়। কেউ কেউ ‘গুজব ছড়াচ্ছে, হেফাজতে’র উদ্দেশ্য অমুক দলকে ক্ষমতায়’ বসানো, নাউজুবিল্লাহ।’ স’রকারকে এ ধরণের গুজবে’ কান না দেওয়ার’ অনুরোধও ‘করেছেন বাবুন’গরী।

জ্বালাও-পোড়া’ওসহ যেকোনো ধরণে’র সংঘাতকে হেফাজতে ইস’লাম হারাম মনে করে ‘বলেও জানিয়েছেন এক’যুগ আগে প্রতিষ্ঠিত’ কওমি মাদরাসা’ভিত্তিক এ সংগঠনের প্রধা’ন জুনায়েদ বাবু’নগরী।

সোম’বার (১৯ এপ্রিল) ফেসবুকের’ মাধ্যমে দেওয়া এক ভিডি’ও বার্তায় হেফাজতে ই’সলামের আমীর জুনা’য়েদ বাবুনগরী এ’ সব কথা ব’লেছেন।

স্বাধী’নতার সুবর্ণজয়ন্তীতে গত ২’৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী ন’রেন্দ্র মোদীর বাংলা’দেশ সফরকে কেন্দ্র ক’রে চট্টগ্রামের ‘হাটহা’জারী, ব্রাহ্মণবা’ড়িয়াসহ দেশের বিভিন্নস্থানে পুলিশের ‘সঙ্গে হেফাজতের নেতাকর্মীদের সংঘ’র্ষ হয়। এতে অন্ত’ত ১৭ জনের মৃত্যুর’ খবর এ’সেছে গণমাধ্য’মে। দেশের বিভিন্নস্থানে সহিংসতায় হতা’হত, সরকারি-বেসরকারি ‘বিভিন্ন স্থাপনায় তাণ্ডব, নারা’য়ণগঞ্জের একটি ‘রিসোর্টে কথিত স্ত্রীসহ ‘কেন্দ্রীয় নেতা মামুনুল ‘হকের অবরুদ্ধ হওয়া, পরবর্তীতে মামুনু’ল হকসহ কয়েকজন হেফাজ’ত নেতা গ্রেফতারস’হ সাম্প্রতিক’ প্রেক্ষাপটকে সাম’নে রেখে এই ভিডি’ও বার্তা দিয়েছেন’ বাবুনগরী।

বার্তা’য় সংঘর্ষের প্রেক্ষা’পট বর্ণনা করে বাবুনগ’রী বলেন, ‘গত ২৬ মার্চ’ জুমাবার কিছু দুর্ঘট’না হয়ে গেছে। ‘অথচ ২৬ মার্চ হেফাজ’তে ইসলা’মের কোনো কর্ম’সূচি ছিল না। আমা’দের কোনো কমান্ড ছিল না।’ আমি নিজে হাটাহা’জারী মাদরাসায় ছিলাম না, দূরে সফ’রে ছিলাম। ‘র আগে বায়তুল মোকা’ররমেও কিছু ‍মুসল্লী আ’র ক্যাডারের মাঝখানে কিছু অ’ঘটন হয়েছে। ক্যা’ডাররা মুসল্লিদের মারধর ক’রেছে বায়তুল মোকারর’ম মসজিদের ভেতরে।’

এরপ’র হাটাহাজারীর ঘটনা’ হয়েছে, যার জ’ন্য আমরা বেশি দুঃখিত, ব’লেন জুনায়েদ’ বাবুনগরী।

এর ধারাবাহিক’তায় তিনি আরও বলেন, ‘আবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়’ কিছু ঘটনা হয়েছে। মোট কথা হল, এস’ব কোনো ঘটনায় হেফাজ’তে ইসলা’মের কোনো কর্মসূচি ছিল না, কো’নো কমান্ড ছিল না’।’

নরে’ন্দ্র মোদির সফর নিয়ে ‘হেফাজতের কোনো কর্মসূচি ছিল’ না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ভারতের প্র’ধানমন্ত্রী মোদী আসা’ উপলক্ষে’ আমাদের হেফাজতে ইস’লামের কোনো কর্মসূ’চি ছিল না। কিছু কিছু বক্তা’রা তাদের বক্তব্যে কিছু কথা বললেও কিন্তু ‘মোদী আসার ব্যাপারে’ হেফাজ’তের কোনো কর্মসূ’চি ছিল ‘না।’

হেফাজ’তে ইসলামের সর্বশেষ ‘অবস্থান ব্যাখ্যা করে বক্তব্যে বাবুনগ’রী বলেন, ‘হেফাজত এক’টি শান্তিপূর্ণ, অরাজনৈ’তিক দ’ল। সমস্ত মুসল্লি, ওলামায়ে-কেরাম হে’ফাজতের সদস্য। স’মস্ত স্কুল, কলেজ, ‘মাদরাসা, ভার্সিটির ছাত্র-শিক্ষ’ক হেফাজতের সদস্য। সবা’কে নিয়ে হেফা’জত করতে’ছি। হেফাজতে ‘ইসলামের উদ্দেশ্য আকি’দা, ঈমান, দ্বীন, ই’সলামকে রক্ষা করা। মুসলমানদের আকিদা, দ্বীন রক্ষা করা হে’ফাজতের উদ্দেশ্য।’

হেফা’জতে ইসলাম প্রতিষ্ঠা লাভ’ করেছে ২০১০ সালে। গত ১১ বছরে কে’উ প্রমাণ দিতে পারবে না’, অমুক পার্টির সাথে ‘হেফাজতের সম্পর্ক’ ছিল। কেউ ইনশাল্লা’হ প্রমাণ দিতে পারবে না। কা’উকে ক্ষমতায় বসানো’, কাউকে ক্ষমতা থে’কে নামানো হেফাজত ‘ইসলামের উ’দ্দেশ্য নয়, পরি’ষ্কার ভাষায় বলে’ আসতেছি। কোনো পার্টি’ বা দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা’ হেফাজতে ইসলামের উ’দ্দেশ্য নয়, পরিষ্কার’ ভাষায় বলে আসতেছি’। হেফাজ’তে ইসলামের উদ্দেশ্য হল, ‘আল্লাহর জমিনে রাসুল (সা.) ‘এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা। কোনো’ পার্টি বা দলের এজেন্ডা বাস্ত’বায়ন করা ‘নয়। এই হল হেফাজ’তের অব’স্থান।’

হেফাজ’তে ইসলামের বিরুদ্ধে’ পরিকল্পিতভাবে ‍গুজব র’টানোর অভিযোগ করে তিনি’ বলেন, ‘কিছু কুচক্রীমহল’ নানাপ্রকার’ গুজব রটাচ্ছে’। বাংলাদেশ’ সরকারের প্রতি ‘আমাদের অনুরোধ, আপনা’রা এই গুজবে কান ‘দেবেন না। কেউ কেউ ‍গুজ’ব ছড়াচ্ছে যে- হেফাজ”তের উদ্দেশ্য হল অমুক অমু’ক দলকে ক্ষমতায় ব’সানো, নাউজুবিল্লাহ, এটা ডাহা’ মিথ্যা কথা, নির্জলা মি’থ্যাচার। মাননীয় সরকারকে ‘আমি বলব, আ’পনারা এসমস্ত গু’জবে কান ‘দেবেন না।’

হেফাজ’তের নেতাকর্মীদের হয়রানির ‘অভিযোগ করে বাবুনগরী বলেন, ‘প্রশা’সন মাহে রমজানের মধ্যে আমাদের নে’তাকর্মীদের, হক্কানি, ওলামা’-কেরামকে, তৌহি’দি জনতাকে হয়রানি করছে, গ্রেফ’তার করছে বেধড়কভাবে। মানু’ষ পাহাড়ে পাহাড়ে ঘুরছে গ্রে’ফতার-হয়রানির ভয়ে। ই’ফতার করতে আস’লে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। সে’হেরি করতে আসলে ধরে’ নিয়ে যাচ্ছে। বশীরউল্লা’হকে তারাবির নামাজ পড়ার’ সময় ধরে নিয়ে ‘গেছে। কেমন’ হয়রানি, কেমন জুলুম ‘নির্যাতন! এভাবে তো এ’কটা দেশ চলতে পারে না।’’

‘হাটহাজা’রী মাদরাসার আশপাশে এলাকা’বাসি কেউ ঘরে নাই। অথচ ‘তারা এই আন্দোলনে ছিলই ‘না, তারা আমার এলা’কাবাসি, আমি জানি।’ সমস্ত ঘর খালি’। এভাবে যদি নির্দোষ মানুষ’এবং হেফাজতে ইসলামের’ নেতাকর্মীদের, হক্কানি ওলামা-কেরামকে, তৌহিদী জনতাকে’ বে’ধড়ক ধরপাকড়’ করা হয়…। একদিকে মাহে’ রমজান, আবার লকডাউন, ই’ফতার করতে আস’তে পা’রতেছে না, সে ই’ফতার কি’ভাবে কর’বে, রোজা কিভাবে রা’খবে, সেহেরি কিভাবে ‘খাবে? অবিলম্বে এই ধরপা’কড়, গ্রেফতারি, মিথ্যা মামলা, হয়’রানি বন্ধ করুন। মি’থ্যা মামলা দিয়ে অনে’ককে হয়রানি ‘করা হচ্ছে, বন্ধ’ করুন।’

আজি’জুল হক ইসলামাবাদী, মামুনু’ল হক, জুনায়েদ আল হাবিব, ইলিয়া’স হামিদীসহ গ্রেফতার হেফা’জতের কয়েকজন নে’তার নাম উল্লেখ ক’রে তাদের মুক্তি ‘দাবি করে তিনি বলেন, ‘যে’সব ওলামা-কেরামসহ নির্দোষ মা”ষকে গ্রেফতার করা হয়ে’ছে নিঃশর্তে মুক্তি’ দান করুন। ২০১৩ সা’লের মামলা’য় আট-নয় বছর ‘পর গ্রেফতার ক’রা হয়েছে। এতদিন কোথায় ছিলেন আপনারা? ২০’১৩ সালের মামলাগুলো সা’জানো, ডাহা মিথ্যা’। এসব মামলা’য় যাদের গ্রেফতার করা হয়ে’ছে তাদের মুক্তি ‘দিন।’

হেফাজতে’ ইসলাম সংঘাত চায় না উল্লেখ’ করে তিনি বলেন, ‘নৈরাজ্য, সন্ত্রাস, অশান্তি, জঙ্গিবা’দ- এসব আমরা ‘চাই না। ইসলাম সন্ত্রাসের ধ’র্ম নয়, শান্তির ধর্ম। হেফাজত শা’ন্তিশৃঙ্খলা চায়, অশান্তি চায় না। বিশৃঙ্খলা চা’য় না। হেফাজত সংঘাতে’ যেতে’ চায় না।’

হেফাজ’তে ইসলামের নেতাকর্মীদের উ’দ্দেশে আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী’ বলেন, ‘আপনারা সবুর করুন’। কোনো সংঘা’তে যাবে’ন না। কো’নো ভাংচুর, ‘জ্বালাও-পোড়াওয়ে যাবেন না। হে’ফাজতে ইসলাম ভাঙচুর, ‘জ্বালাও-পোড়াওয়ে বিশ্বাস ক’রে না, বরং হারাম মনে করে। জা’য়েজও ‘মনে করে ‘না। সবুর করুন আপনারা’। বালা-মুছিবতে ধৈর্য ধারণ করুন’। খবরদার, কোনো জ্বালাও-পো’ড়াও, ভাঙচুর করবেন না। কোনো সংঘা’তে যাবেন না। এটা আমার নসিহত হেফাজতের নে’তাকর্মীদে’র কাছে। আল্লাহর কাছে’ দোয়া করেন ‘বসে বসে।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *