কভিডের তীব্রতা কমিয়ে ইমিউনিটিও বাড়ায় মাস্ক: ব্রিটিশ জার্নাল

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতেই শুধু মাস্ক অপরিহার্য নয় বলে জানিয়েছে দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল।

সান ফ্রান্সিসকো স্কুল অব মেডিসিনের গবেষকেরা এই প্রকাশনাটিতে লিখেছেন, নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করা মানুষেরা কভিড-১৯ রোগে সংক্রমিত হলে উপসর্গগুলোর তীব্রতা কম থাকে। পাশাপাশি তাদের রোগপ্রতিরোধক ক্ষমতাও শক্তিশালী হতে পারে।

প্রফেসর মনিকা গান্ধী এবং জর্জ রাদারফোর্ড লিখেছেন, মাস্ক ভাইরাললোড কমিয়ে দেয় বলে আমরা প্রমাণ পেয়েছি। যার কারণে অনেক রোগীর উপসর্গ সেইভাবে দেখা দিচ্ছে না। এতে তাদের ইমিউনিটি বাড়ছে।

গবেষকেরা তাদের নিবন্ধে আর্জেন্টিনা এবং যুক্তরাষ্ট্রের কিছু ঘটনার কথা উল্লেখ করেছেন। একটি জাহাজে আক্রান্ত রোগীদের মাস্ক সরবরাহ করার পরে অনেকে দ্রুত সুস্থ হয়ে যান। একই ঘটনা আরো কয়েক দেশে ঘটেছে।

ঠিক কী কারণে এমনটি হয় সে বিষয়ে অবশ্য এখনো সন্ধিহান গবেষকেরা। তারা বলছেন, ‘মাস্ক ব্যবহারে নাকের চেয়ে মুখ দিয়ে বেশি শ্বাস নেয়ার একটা প্রভাব আছে।’

সেক্ষেত্রে আবার আরেক সমস্যা দেখা দেয়ার কথা। মুখ শুকিয়ে যেতে পারে, তখন কমে যাবে লালা। এই লালা ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করে দাঁত পরিষ্কার রাখে।

বিজ্ঞানীদের ধারণা লালা কমে যাওয়ার কারণে ভাইরাল লোড কমে যায়। তাতে রোগটির তীব্রতা কমে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.