খাবারে মিললো ছত্রাক, ফুঁসে উঠলেন মিমি

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর নিউজ: এবার পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর অর্ডার দেওয়া খাবারে মিলেছে ছত্রাক। এ ঘটনায় ক্ষোভে- ফুঁসে উঠেছেন এ অভিনেত্রী।

মিমির অভিযোগ, গত ১৬ সেপ্টেম্বর তিনি নিউটাউনের কাছে ইকো স্পেসে শুটিংয়ে যান । ওইদিন ইকো-স্পেসের সাবওয়ে আউটলেট থেকে একটি সাব অর্ডার করেছিলেন। কিন্তু খাবার হাতে পেয়ে আঁতকে ওঠেন মিমি। যে সাবমেরিন স্যান্ডউইচটি তাকে দেওয়া হয়েছিল সেই স্যান্ডউইচের উপর ছত্রাক পড়ে যায়। এর প্রমাণ স্বরূপ কিছু ছবিও তুলে রাখেন মিমি।

সেই ছবি নিজের টুইটারে পোস্ট করে সাবওয়ে ইন্ডিয়াকে ট্যাগ করে। শুধু এতেই ক্ষান্ত হননি তিনি। কেএমসির খাদ্য বিভাগেও এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। সেই অভিযোগ পত্রটিও বিলের সঙ্গে টুইটে জুড়ে দিয়ে মিমি লেখেন, ‘আমি সবার উদ্দেশে বলছি, যারা সাবওয়ে থেকে খাবার অর্ডার করেন, এবার কিছু অর্ডার করার আগে দুবার ভাববেন। আমি ১৬ সেপ্টেম্বর শুটিং করতে গিয়ে ইকো স্পেসের সাবওয়ে থেকে খাবার অর্ডার করেছিলাম। দেখুন কীরকম খাবার দেওয়া হয়েছে। আমি ভেবেছিলাম ইকো স্পেসের এই আউটলেটটি নিশ্চয় স্বাস্থ্যকর খাবার দেবে’।

অপর টুইটে মিমি সাবওয়ের দিকে আঙুল তুলে লেখেন,’কতদিন ধরে আপনারা এরকম বাসি খাবার গ্রাহকদের দিচ্ছেন? আপনারা গ্রাহকদের স্বাস্থ্যের কথা ভাবেন না, এদিকে তাদের জন্যই আপনাদের এখানে সাম্রাজ্য বিস্তার হচ্ছে’।

ইতোমধ্যে খাদ্য বিভাগেও পৌঁছে গিয়েছে মিমির অভিযোগপত্র। সেই সঙ্গে বিলটিও জুড়ে দিয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে তিনি আরও লেখেন, ‘আমি সবসময় অন্যায়ের প্রতিবাদ করি। কারণ আমি জানি তোমার একার গলার জোর অনেকখানি পার্থ্য গড়ে দিতে পারে’। অবশ্য মিমির এই প্রতিবাদকে সমর্থন জানিয়েছেন নেট নাগরিকরা। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছেন না যে এমনটা হতে পারে। অবিলম্বে লাইসেন্স বাতিলের দাবি তুলেছেন অনেকে। এমনকী ইকোস্পেস থেকে যাতে সরিয়ে নেওয়া হয় সাবওয়ে সেই আবেদনও করেছেন অনেকেই।

জনপ্রিয় মার্কিনি ফুড চেন সাবওয়ে। এমনকী বিশ্বের বৃহত্তম রেস্তোরাঁ অপারেটর হিসেবেই পরিচিত। সাবওয়ের খাবারের জনপ্রিয়তা রয়েছে এ শহরেই। কিন্তু তাদের খাবারের গুঁগত মান এরকম দেখে অনেকেই আর ভরসা করতে পারছেন না। মিমিকে ধন্যবাদ জানিয়ে একজন লেখেন, এবার সময় হয়েছে আমাদের দেশি ডিম পাঁউরুটিতেই ফিরে যাওয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.