খুলছে সুন্দরবন, তবে বাড়ছে পর্যটন কর

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: নানা টালবাহনার পরে করোনা আবহের মধ্যেই বুধবার থেকে পর্যটকদের জন্য দরজা খুলল সুন্দরবনে। তবে কিছু জায়গায় এখনই পর্যটকদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হচ্ছে না। বে়ড়েছে পর্যটনের খরচও। সেই সঙ্গে মেনে চলতে হবে একগুচ্ছ বিধিনিষেধ। বন দফতর সূত্রের খবর, ১০০ টাকা থেকে ১৭০ টাকা করা হয়েছে মাথা-পিছু ভ্রমণকর। লঞ্চের অনুমতির জন্য আগে দৈনিক দিতে হত ৮০০ টাকা। তা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১৫০০ টাকা। ভুটভুটির ক্ষেত্রে ৫০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০০০ টাকা করা হয়েছে। পর্যটন কর বৃদ্ধির সিদ্ধান্তে দুশ্চিন্তায় ব্যবসায়ীরা। তাঁদের বক্তব্য, একেই লকডাউনে ব্যবসা চলানিতে। তার উপরে পর্যটন কর বাড়ানোয় অনেকেই সুন্দরবনে আসার উৎসাহ হারাতে পারেন। আখেরে যার ফল ভুগতে হবে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে যুক্ত সকলকে।

মার্চের শেষ সপ্তাহ থেকে লকডাউনের শুরু থেকেই সুন্দরবনে পর্যটন বন্ধ ছিল। আনলক পর্বে ৫ জুন সুন্দরবন খুলে দেওয়া হয়েছিল পর্যটকদের জন্য। কিন্তু সে ক্ষেত্রে বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধি ও নির্দেশ মেনে চলার কথা ঘোষণা করেছিল বন দফতর। মাস দেড়েকের মধ্যে ৩ অগস্ট আবারও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় সুন্দরবনের পর্যটন। ক্যানিং মহকুমা জুড়ে করোনা সংক্রমণ ক্রমাগত বেড়ে চলার কারণেই সে সময়ে ওই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বন দফতর।

এ দিকে, রাজ্যের অন্যান্য প্রান্তে শুরু হয়েছিল পর্যটন। এই পরিস্থিতিতে পর্যটন চালুর দাবিতে সোচ্চার হন সুন্দরবনের ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের দাবি ছিল, অন্তত পুজোর আগে যেন অনুমতি মেলে, সেই দাবি ওঠে। অবশেষে বুধবার থেকে মিলেছে অনুমতি। ভ্রমণের অনুমতি দিলেও বেশ কিছু নির্দেশিকা পালন করতে হবে বলে জানানো হয়েছে বন দফতরের তরফ থেকে। যেমন, পর্যটকেরা লঞ্চে বা ভুটভুটি করে নদীতে ঘুরতে পারলেও সজনেখালি, সুধন্যখালি সহ অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না এখনই। পাশাপাশি, শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে চলতে হবে। মাস্ক, স্যানিটাইজ়ার ব্যবহার করতে হবে। এই সংক্রান্ত আরও কিছু নিয়মাবলী বন দফতরের তরফ থেকে জারি করা হয়েছে। পর্যটন কর বা অন্যান্য অনুমতিপত্রের জন্য অনলাইন ব্যবস্থা শীঘ্রই চালু করা হবে বলে জানিয়েছে বন দফতর।

এক ধাক্কায় সুন্দরবন ভ্রমণের কর, লঞ্চ ভাড়া অনেকখানি বাড়ানো হয়েছে। সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর তাপস দাস বলেন, ‘‘২৩ সেপ্টেম্বর থেকেই সুন্দরবন পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। করোনা আবহে ভ্রমণে বেশ কিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সেগুলি মেনেই পর্যটকেরা যাতে ভ্রমণ করেন, সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’’ এ ছাড়া দু’বছর পরে সুন্দরবনের ভ্রমণকর, লঞ্চ ভাড়া বাড়ানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

পর্যটন ব্যবসায়ী দীপক দাস, নিউটন সরকাররা বলেন, ‘‘দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের ব্যবসা বন্ধ। পুজোর আগে সুন্দরবনে পর্যটনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে ঠিকই, কিন্তু যে হারে সমস্ত কর বাড়ানো হয়েছে, তাতে আমরা খুবই সমস্যায় পড়ব।’’

সুন্দরবন পিপল ওয়াটার সোসাইটির সভাপতি হরেন ঘোড়ই বলেন, ‘‘একে দীর্ঘ দিন পর্যটন বন্ধ ছিল। করোনা আবহে বহু পর্যটক বেড়াতে আসতে চাইছেন না। তার মধ্যে পর্যটন কর, লঞ্চ ভাড়া সহ অন্যান্য ভাড়া বৃদ্ধি পাওয়ায় পর্যটকেরা উৎসাহ হারাবেন। এ বিষয়ে যাতে ভাবনা-চিন্তা করা হয়, তার দাবি জানানো হয়েছে।’’

সুত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published.