তামাকজাতীয় পণ্য বর্জন করার সহজ কৌশল

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: ১৯৮৭ সালের ৩১ মে তা’মাক বর্জনের উদ্দে’শ্যে বিশ্বে প্রথমবার ‘ওয়ার্ল্ড নো ‘টোব্যাকো ডে’ বা বিশ্ব তা’মাক বর্জন দিবস পালন করা’ হয়। চিকিৎসক এবং ‘গবেষকদের পরিসংখ্যান বলছে, ধূমপা’নের কারণে সারা বিশ্বে প্রতি বছর ৮০’ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। বি’শেষজ্ঞরা আর’ও বলছেন, করোনাভা’ইরাসের এই পরিস্থিতিতে যারা ধূম’পান করেন না, তাদের থেকে ধূমপায়ীদের ‘সমস্যা বেশি হয়ে থা’কে।

সহজ কিছু প’দ্ধতি মেনে চললে তামাক’দ্বারা মৃত্যুসহ তামাকজনিত রোগের প্র’বণতা কমানো সম্ভব। তামাক ব’র্জনের জন্য সর্ব ‘প্রথম কি’ছু পরিকল্পনা প্রয়ো’জন। যারা তামাক বা ধূমপান করেন ‘তারা নেশার প্রতি নির্ভরশীল হয়ে’ যান। তাই প্রথমেই সরাসরি তা’মাক বর্জন করা’ সম্ভব নয়।

শুরুর দিকে’ একদিনের জন্য এই’ অভ্যাস গড়ে তুলতে হ’বে। এরপর একদিন থে’কে তা বাড়িয়ে দুই’দিন, তারপর তিনদিন কর’তে হবে। ‘আর এভাবেই ধারাবা’হিকভাবে তা সপ্তাহ থেকে মাস ‘এবং মাস থেকে বছরব্যাপী নি’য়ে আসতে হবে। তবে শুরুর’ দিকে এক মাস’ যদি এই অ’ভ্যাস মেনে চলা’ যায় তাহলে তামাক বর্জন ‘খুবই সহজ হয়ে যাবে। সেই’ সঙ্গে তামাক বর্জনের ফলে ‘মাথা ব্যথা থেকে মা’নসিক উত্তেজনাও অ’নেকটা কমবে।’

যেখানে অব’স্থান করবেন অবশ্যই তার আশপা’শে তামাকজাতীয় কোনো পণ্য রা’খবেন না। তাই যেকোনো’ কাজে থাকার ফলেও ‘ওই বিষয়’টি আপনার মনেই পড়’বে না। তামাক বর্জন করলেও ‘অনেকে আবার ধূমপান করেন। এতে নি’কোটিন গাম বা লজেন্স খা’ওয়া যেতে পা’রে। এভাবেই ধীরে’ ধীরে তামাক বর্জন করা সম্ভব’। যদিও এসবে তামাক রয়েছে তবে তা তুলনা’মূলক অনেক কম।’

নতুন কোনো’ অভ্যাস গড়ে তোলার ‘ক্ষেত্রে প্রিয়জনের পাশে থাকা খুব’ই প্রয়োজন। তামাক বর্জনের ‘ব্যাপারেও তাই। যারা তামাক ‘সেবন বন্ধ’ করতে ইচ্ছুক তাদের পরি’বারের সদস্যদের অবশ্যই ‘তার পাশে থাকতে হবে’। তামাক ব’র্জনে তাকে উৎসাহ’ প্রদান করতে হ’বে’। এছাড়াও’ এই সময় পরি’বারের আরও নজর রাখা উচিত যে, তামা’ক বর্জন করতে গিয়ে সন্তান যেন আবার অ’ন্য কোনো নেশায় আ’সক্ত না হয়ে ‘পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *