মেনোপজ বিষয়ে নারী ও তার সঙ্গীর যা জানা দরকার

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: নারীকে না’কি সহজে বোঝা’ যায় না। আসলেই তাই! এ কারণেই হ’য় তো’ খুব কম সংখ্যক পুরুষ’রা নারীর ম’ন জয় করতে পারেন। ত’বে আজকাল অনেকে’ই খুব সহজেই নারীকে বুঝতে পারে’ন। অবশ্য বুঝতে পারা উচিত। ‘নারীর সঙ্গে সম্পর্ক গভীর করতে’ হলে তার সঙ্গে’ বোঝাপ’ড়াও যে ভালো হওয়া উচিত। তাই অব’শ্যই দুজনার দুজনাকে’ বুঝতে পারা ‘উচিত।

আজ’কাল পুরুষের সঙ্গে সমান তালে এগিয়ে যাচ্ছে’ নারী। তবে নারীদের কষ্ট একটু বেশিই হয়। ‘ঘর সামলানো ও অফিস’ দুটোই সামলা’তে হয় তাদের। এছা’ড়াও নারীদের ব্যক্তিগত কিছু সমস্যা থা’কে। পিরিয়ড চলাকালীন বা’ এর আগে-পরে অসংখ্য পার্শ্বপ্র’তিক্রিয়া হয়ে থাকে না’রীদের। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই’ কোমর ও পেট ব্যথা হয়ে থাকে। প্রকৃত অর্থে পি’রিয়ড চলাকালীন বা আগে-পরে মহিলাদের শ’রীরে হরমোনের বেশ’ কিছু পরিবর্তন হ’য়ে থাকে। এর থেকে’ও যন্ত্রণাদায়ক মেনোপ’জ বা ঋতুজরা। ঋতু’জরা হচ্ছে নারীদেহে নারী হরমো’নজনিত ঘাটতির কার’ণে নিয়মিত ‘হওয়া মাসিক চক্র ‘একেবারেই বন্ধ’ হয়ে যাওয়া।

দীর্ঘকালীন প্রক্রিয়া :’ ঋতুজরা (মেনোপজ) একদিনে’ হয় না। এটি শুরুর আগের ‘অবস্থাকে প্রিমেনোপজ বলা হ’য়। অনেক বছর’ আগে থেকে ‘শুরু হয় এটি। যেমন পিরিয়ডে’র সময়ের মধ্যে পার্থ’ক্যের হ্রাস বৃদ্ধি ঘটে। কখনো ১০ দিন’আবার কখনো ১২০ দিন ‘অন্তরও পিরিয়ড হয়ে ‘থাকে। কখনো প্রবাহ কম ‘আবার কখনো বেশি হয়। এ’সব হচ্ছে ঋতুজরার লক্ষণ। হরমোনে’র বিভিন্ন পরিবর্তনের সময় ‘থেকে শুরু হয়। এতে’ মানসিক স্বাস্থ্যে প্রভাব পড়ে।

সমস্যা একার নয় : ঋতুজ’রার সমস্যা একার নয়। নারীর শারীরিক এবং মানসি’ক কষ্ট সমাধানে পুরুষের সহায়তা প্রয়োজন। ঋ’তুজরার সময় ‘অনিয়মিত পিরিয়ড, ‘বারবার ঘুম ভেঙে যাওয়া, কারণ ছাড়া’ই উদ্বেগ ইত্যাদি লক্ষণ ‘দেখা দেয়। এ সময় নারী’র পাশে ‘থাকা খুব বেশি প্রয়ো’জন। সারাদি’ন আপনার সঙ্গিনীর খিটখিটে মেজা’জের জন্য তিনি নিজে দায়ী নন। ‘তার বিভিন্ন শারীরিক পরিবর্তনের ‘জন্যই এমনটা ‘হয়ে থাকে।’ তাই অল্প বয়স বা সম্প’র্কের শুরু থেকে সঙ্গিনী বা’ বাড়ির নারীদের শারীরিক ও মান’সিক যত্নের চেষ্টা ‘করুন।

পৃথক পৃথক সমস্যা : পিরিয়’ডের সময় যেমন একেক নারীর একক রক’ম সমস্যা দেখা দেয় ঠিক তেমনই ‘ঋতুজরার সময়ও এ’কের জনের শারীরিক সমস্যা একেক ‘রকম হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে কাউ’ন্সিলরের সহায়তা নি’তে পারেন।

পিরিয়ডের মতোই যন্ত্রণাদায়ক : স্ত্রীর শরীরের কষ্ট কখনোই বোঝা যায় না। যৌবনে পিরিয়ড চলার সময় অধিকাংশ নারীর ক্ষেত্রেই ভয়ানক কষ্টের উদ্রেগ হয়। প্রায় অনেক বছর ধরে চলে এটি। ঋতুজরা মানে পিরিয়ড থেমে যাওয়া। তার অর্থ এটা নয় যে, নারীর শরীরের কষ্ট দ্রুত লাঘব হয়।

শারীরিক পরিবর্তন : ঋতুজরার কারণে মাথা ব্যথা, শুষ্ক ভ্যাজাইনা, ওজন বৃদ্ধি, চুল পড়া বা সাদা হওয়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়। এসময় নারীরা তাদের চেহারা নষ্ট হওয়া এবং অবসাদে ভুগতে থাকেন। অনেকে মুখে কিছু বলতে না পারলেও ছোট ছোট কারণেই কান্না শুরু করেন। এমন পরিস্থিতিতে নারী সঙ্গীকে ভালোবেসে কাছে টেনে নিন।

শরীর চর্চায় উৎসাহ : ঋতুজরার সময় নারী সঙ্গীকে শরীর চর্চায় উৎসাহ দিন। যেমন জিম বা সকালে হাঁটাহাঁটি করার মতো শারীরিক ব্যায়ামে তার সঙ্গী হয়ে উঠুন। তাকে বোঝার চেষ্টা করুন। তার মন ভালো রাখার চেষ্টা করুন। পুরুষ সঙ্গী হিসেবে এটা আপনার দায়িত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *