মূলধনের অভাবে অঙ্কুরেই নষ্ট হচ্ছে উদ্যোক্তাদের স্বপ্ন

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: উদ্যো’ক্তা তৈরি কিংবা চাকরির বাজা’রে দক্ষ লোকবল তৈরিতে প্রশি’ক্ষণের নামে বিপুল অর্থ খ’রচ করছে সরকার।’ কিন্তু তা থে’কে কাঙ্খিত ‘সুফল মিলছে কতটু’কু?

বাস্তবতা বল”ছে, কষ্টের সব আয়োজন অঙ্কুরেই বিনষ্ট হচ্ছে ‘মূলধনের অভাবে। বিশ্লেষকরা ব’ছেন, বাস্তবভিত্তিক ‘প্রশিক্ষণ এবং’ প্রশিক্ষণ পরবর্তী মনিটরিং না’ থাকায় অর্থের অপ’চয় হচ্ছে বেশি।’

গাইবান্ধার প্রত্যন্ত ‘এলাকায় বসে টানা ৪ বছর তুল’সী চা নিয়ে গবেষণা করেছেন মনোয়া’রা তালুকদার। কৃষক’দের কাছ থেকে তুল’সী পাতা সং’গ্রহ ও বাজারজাত করে সুনাম’ কুড়িয়েছেন দেশ বিদেশে। ২০০৮ সালে সা’রা দেশ থেকে উদ্ভাবনীমূলক সেরা উ’দ্যোক্তা নির্বাচিত ‘হন এসএ’মই ফাউন্ডেশনের কাছে। ‘আয়োজন করে পাওয়া পুরস্কার কিংবা ‘ব্যবসায়িক সুনাম এর সব’ই এখন তার কাছে’ ধূসর স্মৃ’তি।

বাগের হাটে’র সোনাপুর গ্রামের ৩০ বছর বয়েসী যুবক বায়ে’জীদ হোসাইন। খুলনা যুব উন্ন’য়ন কেন্দ্র থেকে টানা দে’ড় বছর সময় ব্য’য় করে নিয়েছিলেন ৩টি প্রশিক্ষ’ণ। প্রশিক্ষণের পর চাকরি তো মি’লেই নি; রুটি রুজির প্রয়োজনে এখ’ন তিনি মাছ ‘বিক্রেতা।

রাজধানীর হাজারি’বাগের এই কারখানায় কাজ করছেন প্রায় ৬’০ জন শ্রমিক। এখানকার উ’ৎপাদিত চামড়াজাত’ পণ্য রপ্তানি হ’চ্ছে আমেরি’কা ও সৌদি আরবে। গত ১ যুগে এই না’রী উদ্যোক্তা এখন পর্যন্ত নিয়েছেন মাত্র’ দুটি স্বল্পকালীন প্রশিক্ষণ। তার মতে’ও প্রশিক্ষণের সাথে ‘সমন্বয় নে’ই প্রয়োগের।

শ্রমবাজারে দক্ষ জ’নবল ও উৎপাদনশীলতা বাড়া’তে প্রশিক্ষণের নামে বিপুল অর্থ খ’রচ হলেও শ্রমিকের মা’থাপিছু উৎপা’দনশীলতার মা’নদন্ডে তলানিতে বাংলাদেশ। যা প্রতি’বেশী ভারত, পাকিস্তান, ইন্দো’নেশিয়া কিংবা শ্রীলঙ্কার’ ধারে কাছেও নেই। বি’শ্লেষকরা এজন্য প্রশি”ক্ষণ পরবর্তী তদারকির অভাবকে’ও দায়ি কর’ছেন।

দেশে ৬ লাখের’ও বেশি দক্ষ লোকবল তৈরি ও তাদের চাকরি’ নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে’ ৩ হাজার ৭শ কোটি ‘টাকা খরচ করা হচ্ছে’ স্কিলস ‘ফর এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড ইন’ভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম-এসইআইপি প্রকল্পের মাধ্যমে।’ ২০১৪ সালে শুরু হ’ওয়া প্রশিক্ষণের সবচেয়ে বড় এ’ প্রকল্পের মা’ধ্যমে এখন পর্যন্ত নিবন্ধিত ‘হয়েছেন প্রায় ৫ লাখ লোক; যেখানে মাঝ’পথে ঝরে পড়েছেন প্রায়’ পৌনে ২ লাখ’।

আইএলও ও এডিবির ‘যৌথ জরিপ বলছে ২০২০ সালে যুব জনগো’ষ্ঠির প্রায় ২৫ শতাংশই ক’র্মহীন! তাই প্রশিক্ষণের ‘গুণগতমান ও দক্ষ’ লোক’বল নিশ্চিত করা ‘না গেলে ব্যাহত হবে ‘টেকসই উন্ন’য়নের লক্ষ্যমা’ত্রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *