ফোনে কথা বলতে বলতে করোনার টিকা

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: বরগুনা’য় মোবাইল ফোনে কথা বলতে’ বলতে দাঁড় করিয়ে করোনার এক টিকা প্র’ত্যাশীকে টিকা দেওয়া হয়েছে। ‘এ ঘটনার একটি ছবি সামাজি’ক যোগাযোগ মাধ্যম ফে’সবুকে ছড়িয়ে পড়লে ক্ষোভ প্র’কাশ করেছেন এলাকাবা’সী।

খোঁজ নিয়ে’ জানা গেছে, গত সোমবার (১৮ অক্টো’বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগু’না সদর হাসপাতালের করোনা’ভাইরাসের টিকাদা’ন কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘ’টে।এ ঘটনায় অভি’যুক্ত ওই স্বাস্থ্যকর্মীর নাম মো. এনামুল কবির। তিনি সম্প্রসা’রিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) এর মেডিকেল টেকনো’লজিস্ট পদে বরগুনায় কর্ম’রত।

মোবাইল ফো’নে কথা বল’তে বলতে দাঁড় করিয়ে এনা’মুল’ কবির যাকে করোনাভাইরাসের টিকা দিয়ে’ছেন তার নাম মো. ‘হানিফ মোল্লা। ‘তিনি বরগুনা সদর উপজেলার এম বা’লিয়াতলী ইউনিয়নের পরীরখাল এলা’কার বা’সিন্দা।

মো. হানিফ মোল্লা সংবাদমা’ধ্যমকে বলেন, গত সোমবার সকা’ল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা জেনারেল ‘হাসপাতালে করোনাভা’ইরাসের টিকা’র প্রথম ডোজ গ্রহণ করতে যাই। এ সময় টিকাদান কেন্দ্রের একজন কর্মী মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে দাড় করিয়ে আমাকে টিকা দিয়েছেন। পরে এ ঘটনার ছবি আমি ফেসবুকে প্রকাশ করি। তবে তাকে টিকা প্রদানকারী ওই স্বাস্থ্যকর্মীর নাম বলতে পারেননি তিনি। ফেসবুকে প্রকাশ করা ছবিতে দেখা যায় হানিফ মোল্লাকে টিকা প্রদানকারী ওই স্বাস্থ্যকর্মীর হলেন সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) এর মেডিকেল টেকনোলজিস্ট মো. এনামুল কবির।

এ বিষয়ে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) এর মেডিকেল টেকনোলজিস্ট মো. এনামুল কবির সংবাদমাধ্যমকে বলেন, করোনার টিকা প্রদানের সময় হঠাৎ করে অফিস থেকে আমাকে ফোন দেয়া হয়। তাই অনিচ্ছা সত্ত্বেও আমি ফোনটি রিসিভ করতে বাধ্য হয়েছি।

এ বিষয়ে বরগুনার পাবলিক পলিসি ফোরামের সভাপতি হাসানুর রহমান ঝন্টু সংবাদমাধ্যমকে বলেন, করোনার টিকা এভাবে দেওয়া খুবই দুঃখজনক। যেকোনো কাজ একাগ্রতার সঙ্গে করা দরকার। কিন্তু এনামুল কবির যেভাবে করনার টিকা প্রদান করেছেন তা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। এ সময় বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখার অনুরোধ জানানো হয়।

এ বিষয়ে বরগুনা সিভিল সার্জন ডা. মারিয়া হাসান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে বিষয়টি দেখবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.