বাবা-মায়ের ​জীবন বাঁচালো শিশু

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: বা’বা-মা পড়েছিল বিপদে। একটু এদিক-সেদিক’ হলেই প্রাণ হারাতেন তারা। এ’মন পরিস্থিতিতে মাত্র ৯ বছরে’র কন্যাশিশুর বুদ্ধিতে বেঁচে’ গেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচু’সেটস অঙ্গরাজ্যের ব্রকটনের এক দম্পতি। ‘চলতি বছর ২৮ অক্টোবরের ঘট’নাটি বৃহস্পতিবা’র প্রকাশ ‘করেছে সিএনএন।

জানা যায়, ঝড়ের কার’ণে ওই দম্পতির বাড়িতে বিদ্যুৎ’ ছিল না। যে কারণে তারা একটি ‘জেনারেটর ভাড়া করে বিদ্যুতের চাহিদা মেটাচ্ছি’লেন। তাদের অজান্তে সেই ‘জেনারেটর থেকে নিসৃত হচ্ছিল বিষাক্ত কার্বন মনোঅক্সাইড। তবে তাদের ৯ বছরের মেয়ের’ সম’য়োচিত ও বুদ্ধিদীপ্ত পদক্ষেপে প্রাণে ‘বেঁচে যান তারা।’

সিএনএ’নকে জেলিন বারবোসা ব্রান্ডাও নামের’ ওই শিশু জানায়, ওইদিন রা’তে ঘুমাতে যাওয়ার পর হঠা’ৎ বাবার চিৎকার’ শুনতে পায় সে। ‘এতে সে দৌঁড়ে বাবার কা’ছে যায়। গিয়ে দেখতে পায়, তার’ মা অচেতন হয়ে পড়ে আছে।’ আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে যা’চ্ছে তার বা’বাও।

এতে স্তম্ভিত’ না হয়ে জরুরি নম্বরে ফোন করার বুদ্ধি’ আসে তার মাথায়। তবে বাবার আ’ইফোনের ফেস লকে বিপিত্তি’তে পড়ে সে।’ এতেও বিচলিত না হয়ে বাবার ‘মুখের কাছে নিয়ে ফোন আনলক ক’রে তারপর জরুরি নম্বরে ‘ফোন দেয়’ সে।

এরপর নিজে’র সাত বছর বয়সী ছোট বোনকে নিয়ে ‘বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায় ব্রান্ডা’ও। প্রতিবেশীদের কাছে ছুটে যায় সাহায্যে’র জন্য। পরে ‘তার বাবা-মাকে উদ্ধা’র করে নেও’য়া হয় হাসপাতালে। এতে ব্রান্ডাওয়ের’ বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্তে তাৎক্ষণিকভা’বে তার বাবা-মায়ের প্রাণ ‘বেঁচে যায়।’

উল্লেখ্য, বাতাসে’ কার্বন মনোঅক্সাইডের পরিমাণ ১৫০ থেকে ‘২০০ পিপিএমের ওপরে হলে ‘সাময়িকভাবে জ্ঞান হারানো থেকে শুরু করে ‘হতে পারে মৃত্যু’ পর্যন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.