নির্বাচনের গরম কক্সবাজার

Spread the love

বার্তাবহ চাঁদপুর ডেস্ক: ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে আহত কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম সিকদার মারা যাওয়ার পর গতকাল শহরতলির লিংক রোড স্টেশনে নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ, অবরোধ।

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন ঘিরে সন্ত্রাসীদের গুলিতে গুরুতর আহত কক্সবাজার জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম সিকদার মারা গেছেন। এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি, পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তারও করেনি। এদিকে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরতলির লিংক রোড স্টেশন এলাকা অবরোধ করে স্থানীয় লোকজন।

কক্সবাজার : শহরতলির লিংক রোডে গতকাল রবিবার দুপুরে জোহর নামাজের সময় জহিরুলের মৃত্যুর খবর ঘোষণা করা হয়। নামাজ শেষে নিহতের স্বজন, সমর্থকরা রাস্তায় নেমে আসে। মুহূর্তে সড়কে কয়েক শ নেতাকর্মী জড়ো হন। তাঁরা রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেন। গুঁড়ি ও টায়ারে আগুন দিয়ে বিক্ষোভ করেন। স্থানটি শহর থেকে ছয় কিলোমিটার দূরে হলেও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-টেকনাফ পথের মোড়। ফলে বন্ধ হয়ে যায় কক্সবাজার শহরে যান চলাচল। বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট। গতকাল রাত সাড়ে ৯টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করা ছিল। তবে কেউ আহত হয়নি। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। সড়কে ধর্মঘট থাকায় কোনো দৃশ্যমান ক্ষয়ক্ষতি দেখা যায়নি। জহিরুলের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত রাস্তা থেকে সরবেন না বলে জানিয়েছেন অবরোধকারীরা।

স্বজনরা জানায়, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল দুপুর পৌনে ১টার দিকে জহিরুল মারা যান। তাঁর গুলিবিদ্ধ ভাই এবং ঝিলংজা ইউনিয়নের মেম্বার প্রার্থী কুদরত উল্লাহ সিকদারের শারীরিক অবস্থাও সংকটাপন্ন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *